বৃষ্টির কারণে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে পরিত্যাক্ত হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলো বৃষ্টি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি আইনে টাইগার যুবারা জিতেছে ৮ রানে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে এখন তাঁরা এগিয়ে ১-০ ব্যবধানে।

এদিন প্রথমে ব্যাট করে ৪৩ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯২ রান স্কোরবোর্ডে তুলে শ্রীলংকা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৩ রান আসে নাভদ পারানাভিথানার ব্যাট থেকে। এছাড়া লক্ষ্মণ গেমেজের ব্যাট থেকে আসে ৪৩ রান।শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানদের এই ম্যাচেও বল হাতে নাকানি চুবানি খাইয়েছেন পেসার শাহিন আলম। ৪৩ রান দিয়ে তাঁর শিকার ৪ উইকেট। এছাড়া শরিফুল ইসলাম ৪৯ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

পাশাপাশি মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী ৪২ রান খরচ করে নিয়েছেন ২ উইকেট। পেসারদের আক্রমণে লঙ্কান এই দুই ব্যাটসম্যানরা আর কেউই উইকেটে থিতু হতে পারেন নি।জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৪৩ রানের মাথায় ৪ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। ষষ্ট উইকেট জুটিতে শামিম পাটোয়ারি এবং আকবর আলি মিলে দলের হাল ধরেন।

দুজন মিলে যোগ করেন ৫৮ রান। দলীয় ১০১ রানের সময় ম্যাচে আবারও বৃষ্টি হানা দেয়। এরপর আর কোন বল মাঠে না গড়ালেও ৮ রানে এগিয়ে থাকায় ম্যাচের জয়ী দল ঘোষণা করা হয় জুনিয়র টাইগারদের।শামিম পাটোয়ারি ২৭ এবং আকবর আলি ৩০ রান নিয়ে ক্রিজে অপরাজিত থাকেন। শ্রীলংকার পক্ষে আশেন ড্যানিয়েল এবং নাভদ নেন ২টি করে উইকেট।

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ স্কোয়াডঃ তৌহিদ হৃদয় (অধিনায়ক), তানজিদ হাসান তামিম, সাজ্জাদ হোসেন সিয়াম, মোহাম্মদ প্রান্তিক নওরোজ নাবিল, অমিত হাসান, শামীম হোসেন, আকবর আলী, মাহমুদুল হাসান জয়, রাকিবুল হাসান, মিনহাজুর রহমান মোহান্না, মোহাম্মদ রিশাদ হোসেন, শরিফুল ইসলাম, মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী নিপুন, আসাদুল্লাহ হিল গালিব, শাহীন আলম।

শ্রীলংকার অনূর্ধ্ব-১৯ স্কোয়াডঃ কামিল মিশ্র, নাভদ পারানাভিথানা, রাভিন্দু রাশান, নিপুন ধনঞ্জয় (অধিনায়ক), সোনাল দিসুনা, মোহাম্মাদ শামাজ, আভিশকা থারিন্ডু, রাভিন ডি সিলভা, সাদুন মেন্ডিস, লক্ষ্মণ গামাগে, এম সি প্রেমাদাসা, রোহান সঞ্জয়, ওয়েজেসিংহে, নভিন ফার্নান্ডো, আশান ড্যানিয়েল।

স্কোরঃশ্রীলংকাঃ১৯১/৯ ৪৩ (ওভার),নাভদ পারানাভিথানা ৮৩, লক্ষ্মণ গেমেজ ৪৩,শাহিন আলম ৪৩/৪, শরিফুল ইসলাম ৪৯/৩
বাংলাদেশঃ১০১/৪ ২০.৪ ওভার
ফলাফলঃ বৃষ্টি আইনে ৮ রানে জয়ী বাংলাদেশ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here